July 10, 2020

MIRROR NEWS

re-flexion of truth

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ইরানের

জেনারেল কাসেম সোলেমানির মৃত্যুর প্রতিবাদে এবার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল ইরান।

গত জানুযারি মাসে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন  ইরানের জেনারেল কাসেম সোলেমানি।যার জেরে সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সহ জনা ত্রিশেক লোকের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করল ইরান সরকার।

বাগদাদের ধারণা ট্রাম্পের ষড়যন্ত্রেই সোলেমানির মৃত্যু ঘটেছে। ইরান থেকে ইন্টারপোলকে বলা হয়েছে, “ট্রাম্পকে গ্রেফতার করার জন্য আমাদের সাহায্য করুন”।

তবে  ট্রাম্প যে সত্যিই গ্রেফতার হবেন, এমন সম্ভাবনা নেই। কিন্তু ইরানের আচরণে বোঝা যায় যে আমেরিকার সঙ্গে তাদের শত্রুতা চরমে পৌঁছেছে।

তেহরানের সরকারি কৌঁসুলি আলি আলকাসিমেহর বলেন, “গত ৩ জুন বিমান হানায় সোলেমানির মৃত্যু হয়। ট্রাম্প ও আরও অন্তত ৩০ জন এই হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী। তাঁদের বিরুদ্ধে খুন ও সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনা হয়েছে”।

ইরানের সরকারি কৌঁসুলি ট্রাম্প বাদে অপর ৩০ জন অভিযুক্তের নাম বলেননি। কিন্তু জানিয়ে দিয়েছেন, ট্রাম্প আগামী দিনে প্রেসিডেন্ট না থাকলেও তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি থাকবে।তবে ইন্টারপোল থেকে ইরানের গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

ইরান প্রশাসন সুত্রে খবর,”ইন্টারপোলকে জানানো হয়েছে ট্রাম্প ও অন্যান্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে যেন ‘রেড নোটিস’ জারি করা হয়”।

কি এই রেড নোটিশ??

সাধারণত কারও বিরুদ্ধে রেড নোটিস জারি হলে সে যে দেশে থাকে সংশ্লিষ্ট সরকার তার গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করে।

ইরান সরকারের অনুরোধে ইন্টারপোল কমিটি বসানো হয়।কিন্তু বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন,ইন্টারপোল সম্ভবত ইরানের অনুরোধ রক্ষা করবে না।

প্রসঙ্গত, ইরানের রেভলিউশনারি গার্ডের প্রধান ছিলেন জেনারেল সোলেমানি। বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের কাছে মারকিন ড্রোন হামলায় তিনি নিহত হন। তার প্রতিশোধ নিতে ইরানও ইরাকে মোতায়েন মার্কিন সেনাদের লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে।

 
 

PAYTM

GOOGLE PAY