September 29, 2020

লাদাখ সীমান্তে শিতের তীব্রতা বাড়ছেই

সামনেই শিতের মরসুম।

তবে সীমান্তে দু পক্ষের উষ্ণতা একটু ও কমেনি।

তাই লাইন অফ কন্ট্রোলের (LAC) প্রবল উত্তেজনার মাঝেই ভারতীয় সেনাবাহিনী সৈন্যদের জ্বালানী সরবরাহ করতে এবং শীতের মৌসুমের আগে প্রবল শিতের হাত থেকে রক্ষা পেতে লেহ ও লাদাখের তেল ডিপোগুলি সংরক্ষণ করেছে।

বেশ কয়েকটি ডিপো স্টক আপ করা হয়েছে।

সামনের বাহিনীর জন্য সরবরাহ পাঠানো হয়েছে।

এই জ্বালানী তেল লুব্রিক্যান্ট ডিপো হ’ল বৃহত্তম এবং সর্বোচ্চ ডিপো।

এখান থেকে প্রেরিত জ্বালানীটি শীত আবহাওয়ায় সেনাবাহিনীকে উষ্ণ রাখার জন্য ব্যবহৃত হয় ঠিক এমন টাই জানালেন ব্রিগেডিয়ার রাকেশ মানোচা।

ইতিমধ্যে ভারতীয় সেনাবাহিনির তরফে জানানো হয়েছে প্রবল শীতের মরসুমে মোকাবিলা করার জন্য সমস্ত রকম জিনিস যেমন – খাদ্য, পোশাক ও জ্বালানী যথেচ্ছ হারে মজুত করা হয়েছে।

প্রত্যেক সেনার জন্য ই সবচেয়ে ভাল পোশাক,খাদ্য এবং তাঁবু র ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মাজ জেনারেল- স্টাফ প্রধান -অরবিন্দ কাপুর এর বক্তব্য অনুযায়ি,ভারতীয় সেনাবাহিনির লজিস্টিক পরিকাঠামোটি এমনই স্মার্টভাবে তৈরি যে প্লাগ ও প্লে মোডের বাইরে থেকে আসা যে কোনও গঠন নির্বিঘ্নে ইউনিটগুলিতে যোগদান করতে পারে এবং কার্যকরী হতে পারে।

তিনি আর ও জানান,প্রত্যেক অফিসার,জে সি ও এবং জওয়ানদের হাই ক্যালোরি যুক্ত সবচেয়ে ভাল কোয়ালিটির রেশন দেওয়া হয়েছে।

পূর্ব লাদাখে নিযুক্ত সৈন্যরা এখানকার স্থানীয় অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

ব্রিগেডিয়ার এ.এস.রাঠোর এর কথায়-হাই অল্টিটিউডে নিযুক্ত ভারতীয় সেনা জওয়ান দের সবচেয়ে বেশি প্রোটিনযুক্ত সবচেয়ে ভাল কোয়ালিটির রেশন দেওয়া হয়েছে।

তাঁর মতে, অবশ্য প্রত্যেক সেনার রেশনের মান একই রকম, কোন র‍্যাংক অনুযায়ি নয়।

এছাড়া,লাদাখে মোতায়েন করা বাহিনীর জন্য তারা প্রয়োজনীয় সমস্ত রেশন পেয়েছেনএবং মজুত করেছেন বলেই তিনি জানান।

বিশেষ উল্লেখ্য যে,একাধিক দফায় বৈঠকও লাদাখে উত্তেজনা হ্রাসে কোনও উল্লেখযোগ্য ফল দিতে ব্যর্থ হয়েছে এবং এবার ভারতীয় পক্ষ উচ্চতর পাহাড়ী অঞ্চলে দীর্ঘমেয়াদি সেনা মোতায়েনের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করেছে।

PAYTM

GOOGLE PAY