October 26, 2020

কূল ভূষণ যাদব মামলায় ভারতের দাবি অমান্য করল পাকিস্তান

কূলভূষণ যাদব মামলায় ভারতীয় আইনজীবি নিয়োগের দাবি প্রত্যাখ্যান করল পাকিস্তান।

ভারত দাবি করেছিল এই মামলায় নিরপেক্ষ বিচার।

এর জন্য ভারত একজন আইনজীবি নিয়োগ অথবা ক্যুইন’স কাউন্সেল গঠন করতে চায়।

কিন্তু শুক্রবার পাকিস্তান তাতে আপত্তি জানায়।

তাদের মতে,যাদব এর জন্য ভারতীয় আইনজীবি বা ক্যুইন’স কাউন্সেল গঠনের কোন প্রশ্ন ই ওঠে না কারণ,

একমাত্র এমন আইনজীবি ই পাকিস্তান এর কোর্টে মামলা লড়তে পারবেন যার এদেশে প্র‍্যাকটিস এর লাইসেন্স আছে-

একটি প্রেস ব্রিফে এমন টাই জানিয়েছেন পাকিস্তানের বিদেশ অফিসের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরী।

রাণীর পরামর্শদাতা বা ক্যুইন’স কাউন্সেল হলেন একজন আইনজীবী বা

অ্যাডভোকেট যিনি লর্ড চ্যান্সেলরের পরামর্শে ব্রিটেনের রাজপরিবারের পরামর্শক হিসাবে নিযুক্ত হন।

এই মাসের পূর্বে ইসলামাবাদ হাইকোর্টের নির্দেশ অনুসারে ফেডারেল সরকার ভারত কে

কূলভূষণের পক্ষে আইনজীবি নিয়োগ করার অনুমতি দেন ও শুনানি একমাসের জন্য স্থগিত রাখা হয়।

ভারতের বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছেন, পাকিস্তান আইসিজে(ICJ) রায় কার্যকর করার ক্ষেত্রে তার বাধ্যবাধকতাগুলি পূরণ করতে অক্ষম এবং এখনও মূল বিষয়গুলির সমাধান করতে পারেনি।

তবে, পাকিস্তানের বিদেশ অফিসের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরীর মতে,

ভারতের কাছে পাকিস্তানের আদালতের সাথে সহযোগিতা করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই কারণ,

এই আদালত শুধু স্থানীয় আইনজীবি ছাড়া আর কাউকে মামলা লড়ার অনুমতি দেয় না।

ভারতের মতে,পাকিস্তানের উচিত একটি নিরবচ্ছিন্ন,

নিঃশর্ত কনস্যুলার অ্যাক্সেসের ব্যবস্থা করা এবং

ভারতীয় কর্মকর্তা দের সাথে যাদব যাতে সুস্থ অবস্থায় কোনরকম ভয় ভীতি ছাড়া মিটিং করতে পারে সেরকম পরিবেশের ব্যবস্থা করা ।

ভারতীয় কর্মকর্তাদের মতে, এই মিটিং টি ব্যাক্তিগত হওয়া উচিত, যেখানে কোন পাকিস্তানি কর্মকর্তা থাকবে না এবং মিটিং এর কোন রেকর্ডিং থাকবে না।

প্রসঙ্গত,২০১৬ তে কূলভূষণ যাদব কে গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে গিলগিট বালুচিস্তান থেকে গ্রেপ্তার করে পাকিস্তান।

কিন্তু ভারত তা অস্বীকার করে জানিয়েছে,তাকে ইরানিয়ান বন্দর ছাবাহার থেকে অপহরণ করা হয়েছে।

২০১৭তে পাকিস্তানের সামরিক আদালত তাকে মৃত্যুদন্ড দেয়।

কিন্তু আন্তর্জাতিক আদালত ভারতের দাবি কে তুলে ধরে এবং জানায় , পাকিস্তান ভিয়েনা সম্মেলন কে মারাত্মকভাবে লঙ্ঘন করেছে।

PAYTM

GOOGLE PAY