October 24, 2020

নয়া কৃষি বিলে খুশি উত্তরপ্রদেশ। দোটানায় মধ্যপ্রদেশ

     প্রবল বিরোধিতার মধ্যেই গত ২০শে সেপ্টেম্বর লোক সভার পর রাজ্যসভায়ও  পাশ হয়েছে দুটি নতুন কৃষিবিল।

আর  খবর ছড়িয়ে পড়তেই উত্তর প্রদেশ এর কৃষক রা রীতিমতো খুশি হয়েছেন বলে সংবাদ সংস্থার খবরে প্রকাশ । তবে

জব্বল্পুরের বেশ কিছু কৃষি বন্ধু বলছেন বিল দুটি নিয়ে আগে কৃষকদের সঙ্গে আলোচনা করা উচিত ছিল সরকারের। এতে

বৈষম্য বাড়বে রাজ্য অনুযায়ী।  তবে কৃষক বন্ধু রা অনেকেই বলছেন  সরকারের উচিত, প্রচারাভিযানের মাধ্যমে বিলটি কি এবং

তা কৃষকদের দের জন্য কেন উপযোগী তা তাদের বুঝিয়ে বলা। এছাড়া চুক্তিবদ্ধ চাষ এর ব্যাপারেও অনেকের  মতামত,এই

আইন টি ভাল কারণ,এতে আর কোন মতেই ফসল নষ্ট হবে না।  তবে সরকারের মিনিমাম সাপোর্ট প্রাইস এর দিকে নজর দিয়ে

সেটির ব্যাপারে কৃষকদের নিশ্চিত করা উচিত যাতে তার কমে তাদের জিনিস বেচতে না হয়।

মোরাদাবাদে কৃষি কাজ করেন শ্যামবতী ।  শ্যামবতীর মতে,এটা সরকারের নেওয়া একটা খুবই দারুন পদক্ষেপ।

এর পর থেকে তারা শুধু মান্ডি ছাড়াও অন্য জায়গাতেও তাদের শস্য বিক্রি করতে পারবেন।

গোরক্ষপুরের কৃষক রাজীব আস্থানের মতে,যেহেতু সরকার “মিডলম্যান” দের এই বিলে বাদ দিয়েছেন,

তাই কৃষকরা তাদের শস্যের জন্য ভাল দাম পাবে।এই দেশ কৃষিভিত্তিক আর তাই কৃষকের সুবিধার দিক টি দেখা বিবেচনা করেই

বিল আনা উচিত,এউ বিল টি সেরকম ই এবং এতে সকলেই খুশি হবে।  এছাড়াও কানপুর এবং মহারাষ্ট্রের ধুলে জেলার কৃষকরা

বিল পেয়ে বেজায় খুশি। তবে উল্লেখযোগ্য ,  ফার্মাস প্রডিউস ট্রেড অ্যান্ড কমার্স এবং ফার্মাস এগ্রিমেন্ট অন প্রাইস অ্যাসিওরেন্স 

অ্যান্ড ফার্ম সার্ভিস বিল দুটি অনুযায়ী  , এবার থেকে কৃষক রা তাদের পণ্য রাজ্য এগ্রিকালচার

প্রডিউস মার্কেট কমিটির বাইরে নিজের 

রাজ্য বা অন্যান্য রাজ্যেও বেচতে পারবেন। সরকারের মতে,এই বিল ছোট  কৃষকদের সাহায্য করবে কারণ,

তারা তাদের পণ্য নির্দিষ্ট মান্ডির বাইরেও বেচতে পারবেন এখন থেকে । এছাড়াও, বিলে তাদের ব্যক্তিগত ভাবে  ব্যবসায়িক

ফার্মগুলির সাথে তারা চুক্তি স্বাক্ষর করতে পারবেন   ।  মূল পণ্যগুলিতে স্টক হোল্ডিং এর সীমা ছাড়িয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া

হবে।

 

PAYTM

GOOGLE PAY