November 26, 2020

গ্লোবাল সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলে মুখোমুখি সমাজকর্মী,পরিবেশবিদ ও ব্যবসায়ীরা

করোনা আবহের মধ্যেই অনুষ্ঠিত হল ইটি এজড আয়োজিত গ্লোবাল সাসটেনেবল গোল সামিট ২০২০।

সমাজকর্মী,পরিবেশবিদ ও ব্যবসায়ীরা ও এতে যোগদান করেছিলেন।

করোনা পরবর্তীসময়ে পৃথিবীকে সুস্থ সতেজ ও সবুজ রাখাই ছিল এর মূল বিষয়।

২০১৫ এর সেপ্টেম্বরে ইউনাইটেড নেশন এর জেনারেল অ্যাসেম্বলির পক্ষ থেকে ২০৩০ কে লক্ষ্য রেখে এই সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্ট এজেন্ডা রাখা হয়েছিল।

যার ১৭ টি লক্ষ্য ছিল।

এর নীতি বাক্য টি হল – সবাই কে সাথে নিয়ে বিকাশের পথে এগিয়ে চলা।

এই সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্টের মূল লক্ষ্য- পৃথিবী থেকে দারিদ্র‍ মুছে ফেলে সবার জীবনে উন্নতি আনয়ন ।

ইউনাইটেড নেশনের ভারতীয় প্রতিনিধি টি.এস তিরুমূর্তির মতে,এই করোনার ফলে পৃথিবীর বাস্তুতন্ত্র পূর্ব রুপ ফিরে পেতে পারে।

ভারতবর্ষ সারা পৃথিবীর জনসংখ্যার ১৮%।

এবং সে জন্যই এই সাসটেনেবল ডেভেলপমেন্টে ভারতের অবদান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এবং বিগত ছয় বছরে ভারত অভাবনীয় সাফল্যের সাথে প্রকল্পের অন্তর্গত বেশ কিছু লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করেছে।

যেমন, ২০২৪ এর মধ্যে সকলের ঘরে ঘরে ট্যাপ কলের জল পৌঁছে দেওয়ার জন্য সরকার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

২৬ লক্ষ হেক্টর জমি পুনরুদ্ধারের কথা ভাবা হয়েছে।

অ্যাপোলো হাসপাতালের ভাইস চেয়ারপার্সন এর পৃথা রেড্ডির মতে,আগামী ৫০ বছরে ভারত পরিবেশসুরক্ষার মূল চাবিকাঠি হিসেবে কাজ করবে।

তার মতে,সাসটেনেবেলিটি তে কর্মসংস্থান কেও লক্ষ্য হিসেবে ধরা উচিত।

বেকারত্ব যে কোন দেশের অর্থনীতি কে শেষ করে দিতে পারে।

এছাড়া লিঙ্গ বৈষম্য রোধ এবং পঞ্চায়ের স্তরেও মহিলা নেতৃত্ব এর ওপর জোর দেওয়া হয় এই আলোচনায়।

আলোচনাসভায় উপস্থিত ছিলেন,বিখ্যাত নেতা অতুল সুদ,উই কেয়ার অ্যান্ড ডিরেক্টর গভর্মেন্ট, অভিনেত্রী এবং পরিবেশকর্মী ভূমি পেডনেকর,দিয়া মির্জা, ইউ এন এর এনভায়রনমেন্ট গুডউইল অ্যাম্বাস্যাডর সহ আর ও অনেকে।

PAYTM

GOOGLE PAY