December 3, 2020

রাজস্থানের অভায়ারণ্যে রাম মন্দির নির্মাণের গোলাপি পাথর

মাসতিনেক আগেই ধুমধাম করে রাম মন্দিরের ভূমি পুজো হয়ে গিয়েছে।

শুরু হয়ে গিয়েছে মন্দির নির্মাণের কাজও।

আর এরই মাঝে রাম মন্দিরের গোলাপি পাথর উদ্ধার করার জন্য চিহ্নিত করা হলো রাজস্থানের অভয়ারণ্যকে।

এই অভয়ারণ্যে অসংখ্য বন্যপ্রাণীর বসবাস।

প্রায় এক শতাধিক বছর ধরে এখানে বন্যপ্রাণীরা বসবাস করে আসছে।

ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষ দিকে বরেতার ভরতপুর জেলায় কাকুন্দ নদীর উপর একটি বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছিল।

বাঁধের চারপাশে প্রায় ২০০ বর্গ কিলোমিটার জায়গা জুড়ে তৈরি হয়েছিল এই অভায়ারণ্য।

প্রায় ২০০ প্রজাতির পাখির বসবাস রয়েছে এখানে।

এছাড়াও রয়েছে নীলগাই, চিতাবাঘ, নেকড়ে আরও অনেক প্রাণী।

বর্তমানে এই অঞ্চলটি একটি জাতীয় পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে পরিচিতি পায়।

১৯৬০ থেকে এই অঞ্চলে বালু-পাথর খননের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে।

এছাড়াও ২০১৬ সালে এই অঞ্চলে খনন নিষিদ্ধ করে সরকার।

জানা যায়, লাল এবং গোলাপী বেলে পাথর দিয়ে রাজস্থানে বেশ কয়েকটি দুর্গ তৈরি হয়েছে।

যা সকলের নজর কাড়ে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে অবৈধভাবে খনন করা গোলাপি বেলে পাথর বোঝাই ২৫ টি ট্রাক আটক করে ভরতপুর জেলা প্রশাসন।

এই বিষয়ে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের মুখপাত্র শরদ শর্মা জানান, রাম মন্দির নির্মাণ যেহেতু গোটা জাতির একটা কাজ তাই রাজস্থান সরকারের পাথর খননের অনুমতি দেওয়া উচিত।

PAYTM

GOOGLE PAY