March 7, 2021

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলেও চিকিৎসা না পাওয়ার অভিযোগ

হাতে ছিল স্বাস্থ্য সাথী কার্ড।

তবুও বিনাচিকিৎসায় মৃত্যু হল এক রোগীর।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলেও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার না হওয়ার অভিযোগ উঠল শিলিগুড়িতে।

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড হাতে থাকলেও একের পর এক নার্সিংহোমে ঘুরেও কোনরকম চিকিৎসা পেলেন না।

ফলে মৃত্যু হল মহম্মদ গফফার নামে এক ব্যক্তির।

পরিবারের অভিযোগ, কোনো বেসরকারি হাসপাতাল স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এর ভরসায় রোগীকে ভর্তি নেয়নি।

শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কয়েকদিন আগে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন মহম্মদ গফফার।

সেখান থেকে ছুটি দিলেও বাড়িতে ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

তখন তাকে নিয়ে যাওয়া হয় শহরের বেসরকারি হাসপাতালে।

কিছুদিন আগে করানোর স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে হাসপাতালে গেলে অসুস্থ বৃদ্ধকে ভর্তি নিতে রাজী হয় না হাসপাতাল।

তারপর পরিবারের লোকেরা ভর্তি করতে না পেরে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে আসে অসুস্থ ব্যক্তিকে।

বাড়ি ফিরে মৃত্যু হয় তার।

পরিবারের অভিযোগ কিছুদিন আগে লাইনে দাঁড়িয়ে ওই কার্ড করানো হয়েছিল।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছিল ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসার পরিষেবা পাওয়া যাবে।

কিন্তু কোনো নার্সিংহোম সেই কার্ড নিতে রাজি হয়নি।

এই ঘটনা নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে মন্ত্রী গৌতম দেব শিলিগুড়ি শহরের নার্সিংহোম এর কর্ণধারদের নিয়ে আলোচনায় বসেন।

সেখানে তিনি জানান স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলে তাদেরকে ভর্তি হতে হবে সে রোগীদেরকে ফেরানো যাবে না।

এ কথার উত্তরে একগুচ্ছ দাবি জানান নার্সিংহোমের মালিকরা।

নার্সিংহোমের তরফ থেকে জানানো হয়েছে তাদের দাবি না মানা হলে পরিষেবা দেওয়া সম্ভব নয়।