May 8, 2021

নববর্ষের একাল সেকাল

নববর্ষ শুধু একটা নতুন বছরের শুরুয়াত  নয়।

নববর্ষ একটা আবেগ।যাকে অনায়াসে মনের মণিকোঠায়   ঠোঙাবন্দী করে রাখা যায়।

নববর্ষের একটা গন্ধ আছে নতুন জামা ,ফুলকো লুচি আর সাদা আলুর চচ্চড়ির গন্ধ।

নববর্ষ একটা যৌথ পরিবার।

এ পরিবারে  বাড়ি ,পাড়া  ছাড়িয়ে বড় রাস্তার দোকানগুলোর কাকু জ্যেঠুদের  বাস।

নববর্ষ একটা  রূদ্ধশ্বাস উত্তেজনা।

ক্যালেন্ডার খোলার ঠিক আগের  মুহূর্তটা।

তারপর  পেরেক ঠুকে দেওয়ালের শোভাবর্ধন।

নববর্ষ একটা খোলা চিঠি।

যে চিঠিতে শুভেচছা, আশীর্বাদের লেখাগুলোতে হলদে ছোপ পড়ে গেলেও স্মৃতিগুলো টাটকা।

নববর্ষ খেরোর খাতার প্রথম পাতায় হলুদ আর সিঁদুর দিয়ে আঁকা একটাকার কয়েনের ছাপ।

নববর্ষ মানেই সন্ধ্যেবেলায় হারমোনিয়ামে ঝড় তুলে “এসো হে বৈশাখ”।

নববর্ষ মানেই কড় গুণে মিষ্টির প্যাকেটের হিসাব।

নববর্ষ মানেই  বেণীমাধব শীল।

নববর্ষ মানেই এক পৃথিবী পুণ্যের শিশুসুলভ চেষ্টা যা দিয়ে সারাবছর ভাঙিয়ে খাওয়া যায়।

তাই নববর্ষ  প্রতিবারই একরাশ প্রাপ্তি।

আজকের নববর্ষের সীমানা ধার্য হয়েছে মুঠো ফোনের ওয়ালপেপারে কিংবা এস এম এস চ্যাটে।

পাড়ায় পাড়ায় হালখাতার নিমন্ত্রন রক্ষার চেয়ে ঢ়ের বেশি কেতা মল বা ক্যাফে ক্যালচারে।

অনলাইন খরিদারি চৈত্র সেলের দরাদরির থেকে মাচ বেটার।

সঙ্গে রয়েছে লোভনীয় সব অফার।

ছোটবেলায় ১লা বৈশাখ কে পয়লা না ভেবে একলা ভাবতাম ।

নববর্ষ   আজ সত্যি বড্ড একলা।

কারণ ‘নববর্ষ’  এই শব্দের ইতিবাচক সুযোগ সুবিধেগুলো শুধু আমরা ব্যক্তিগত ভাবে ব্যবহার করি মাত্র।নববর্ষ তার সাবেকিয়ানা ছেড়ে আরোপিত বাঙালিয়ানার উন্মেষ ঘটিয়েছে।

নববর্ষ কে এখন আমরা উৎসবে যাপন করি  হৃদয়ে নয়।