Home KOLKATA_METRO প্রথা ভেঙে এবার পুজোয় পৌরহিত্য মায়েদের

প্রথা ভেঙে এবার পুজোয় পৌরহিত্য মায়েদের

146
0

প্রথা না মেনেই   পিতৃ তান্ত্রিক সমাজে   নিজের সন্তানের বিয়ে দিয়েছিলেন মা  নিজেই। বলা ভালো নিজেদের পৌরহিত্য করার যে

দল “শুভমস্তু”, তাকে  দিয়েই। এবার সেই শুভামস্তুই বারোয়ারী দুর্গা পূজোয় অংশ নেবে। মহিলা পুরোহিতের দল বারোয়ারী

দূর্গাপুজোয় অংশ নিচ্ছে এমন টাই কলকাতা দেখবে প্রথম বার।

 

এর আগে বিয়ে , পারিবারিক অনুষ্ঠান , সরস্বতী পুজোয় মহিলা পৌরহিত্যের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়লেও ,

বারোয়ারী দুর্গা পুজোয় মহিলা পৌরহিত্যের এমন ছবি দেখেনি কলকাতা , বা বাংলার মানুষ। কিন্তু নারী শক্তি যে আদি শক্তি,

এমন বার্তা নিয়েই শুভামস্তু র জন্ম দশ বছর আগে।

 

শুভামস্তু তৈরির নেপথ্যের কাহিনী শুনিয়েছেন চার কৃতি রমনী। নন্দিনী , রুমা, শীমন্তি, আর পৌলমি। শুভামস্তুর মতো

নারী পরিচালিত পৌরহিত্যের একটি দল তৈরি করা , আর তাকে চালিয়ে নিয়ে যাওয়া , আজকের সমাজেও যে কতটা

লড়াই এর তা তারাই জানেন। তবে দশ বছর পর কলকাতার এক বড় পুজোর যাবতীয় অর্চনার দায়িত্ব পড়েছে তাদের ওপর

এটাই বড় অনুপ্রেরনার।

 

নন্দিনী এক সাক্ষাতকারে অবশ্য  জানিয়েছেন, তারা চেয়েছিলেন নতুন প্রজন্মের কাছে পুজো অর্চনা  ঠিক কি  আর তার

প্রতি আকর্ষন বাড়িয়ে তুলতে । নন্দিনী আর রুমা দুজনেই  সংস্কৃত ভাষার  অধ্যাপনার সংগে জড়িত। শান্তিনিকেতনে বেড়ে ওঠা

শীমন্তি সমাজের সেবার পাশাপাশি একজন সংগীত শিল্পীও । আর পেশায় শিক্ষিকা পৌলমি সোশিওলজিতে মাস্টার্স করে স্বপ্ন

দেখেন , মেয়েরা চিরাচরিত প্রথা ভাঙ্গুন । যুক্তির সংগে নিজেরাও এগিয়ে আসুন। পৌরহিত্যের মতো পেশায় অংশ নিন।

 

তবে শুভামস্তুর সদস্য রা জানাচ্ছেন , তাদের পরিবারের সাহায্য , অনুপ্রেরনা  ছাড়া এমন কাজ করা কখনোই সম্ভব ছিলো না।

অন্যান্য পৌরহিত্যের দল গুলির থেকে শুভামস্তু খানিক আলাদা । এখানে নেই প্রধান । প্রথম দিকে বেশ কিছু টানাপোড়েন

থাকলেও আজ এই মহিলা পৌরহিত্যের দল  সমাজে মান্যতা, সম্মাননা  পেয়েছেন ফলে তারা চান নতুন প্রজন্মও এগিয়ে আসুন।

 

 

Previous articleসুখসমাপ্তি
Next articleফুসফুস প্রতিস্থাপন রাজ্যে।