Home KOLKATA_METRO গোদি না আবেগ! ধুন্দুমার লড়াইয়ে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব

গোদি না আবেগ! ধুন্দুমার লড়াইয়ে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব

9
0

একদিকে ক্লাবের প্রতি আবেগ , নস্টালজিয়া অন্যদিকে  বর্তমান পরিস্থিতিতে ক্লাবের রাশ ধরবে কে তা নিয়েই চলছে টানাপোড়েন। বুধবার 

তা নিয়েই ধুন্ধুমার কান্ড বাধলও ইস্ট বেঙ্গল ক্লাবে।

 

গত মরশুমের ইস্টবেঙ্গল এর বিনিয়োগকারী সঙ্গস্থা শ্রী সিমেন্ট এর সঙ্গে  ফাইনাল টার্মশিট সই  করাকে কেন্দ্র করেই  ঝামেলার সূত্রপাত।

 

এই টার্মশিট এ  সই করলে ক্লাব এর সিংহভাগ শেয়ারই চলে যাবে বিনিয়োগকারী সঙ্গস্থা শ্রী সিমেন্ট এর হাতে ।

 

আবার অন্যদিকে  এই চুক্তি পত্র সই না হলেই প্রায় ৬৪ কোটি টাকার ঋণ মাথায় চাপতে পারে ক্লাব এর।

এছাড়াও তারা বাদ যেতে পারে দেশের শীর্ষ স্তরের প্রতিযোগিতা থেকে।

 

এই নিয়েই দুভাগে বিভক্ত এই শতাব্দী প্রাচীন ক্লাব এর লক্ষাধিক সদস্য সমর্থকরা।

একদিকে দেবব্রত সরকার এর নেতৃত্বে থাকা প্রশাসক পক্ষ যারা এই চুক্তিপত্র সই করতে নারাজ আর উল্টো দিকে এই ক্লাব এর

সিংহভাগ ফ্যান ফলোয়ার্স  যারা এই চুক্তি সই হওয়ার পক্ষে।

 

ইবিআরপি, ইস্টবেঙ্গল উল্ট্রাস ,ও বাডগেব সহ বহু শক্তিশালী ফ্যানক্লাব কিছুদিন আগে এক যৌথ বিবৃতি তে জানায় যে তারা চায়

এই চুক্তি পত্র তে সই হোক।তাদের বক্তব্য অনুযায়ী ক্লাব এর বর্তমান কর্মকর্তা রা শুধু ক্ষমতার লোভে  মসনদ আঁকড়ে বসে আছে।

 

তারা এছাড়াও আরো বহু অভিযোগ এনেছেন ক্লাব  কর্তাদের  দের বিরুদ্ধে।

অর্থনৈতিক নয়ছয় থেকে শুরু করে ক্ষমতার অপব্যবহার পর্যন্ত একাধিক বড়সড়  অভিযোগ ভেসে বেড়াচ্ছে

একাধিক  লাল-হলুদ প্রশাসন বিরোধী দের মুখে।

 

এদিকে এমন অভিযোগ  দেবব্রত সরকার ও তার সহযোগী রা  প্রথম থেকেই অস্বীকার করে এসেছেন। শুধু তাই নয় তাঁদের বিরূদ্ধে ওঠা 

এই সব অভিযোগ কে “ক্লাব বেঁচে দেয়ার ফন্দি “ বলে দাবি করেছেন।

 

ক্লাবের এমন পরিস্থিতি নিয়ে দু পক্ষই ইতিমধ্যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখাও করেছে। তবে ঐতিহ্যের ক্লাব ফের কবে আবার সব বাধা কাটিয়ে

ফের ছন্দ্যে ফিরবে এখন তারই অপেক্ষার।

 

 

 

Previous articleরবীন্দ্রনাথ কে ফেরাতে রাস্তায়
Next articleআসলে কি এই চাঞ্চল্যকর প্রুযুক্তি pegasus