Home HEADLINE STORY ষষ্ঠদফায় অশান্ত উত্তর ২৪ পরগনা

ষষ্ঠদফায় অশান্ত উত্তর ২৪ পরগনা

22
0

ষষ্ঠ দফা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই উত্তেজনা উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন জেলায়।

জগদ্দলের মেঘনা জুটমিল মজদুর ক্লাব বুথে ৭জন এজেন্ট নিখোঁজ বলে দাবি।তৃণমূল প্রার্থীর অভিযোগ,এর পেছনে বিজেপি র হাত রয়েছে।বিজেপি ঘটনার দায় স্বীকার করেনি।

বাদুড়িয়ার কংগ্রেসের এজেন্টকে বুথে বসতে বাধা,তৃণমূলের বিরুদ্ধে হুমকি দেওয়ায় অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূলের।

অশোকনগরের ট্যাংরায় তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ,বুথের সামনে বোমাবাজি।ভোট কর্মীদের বাস ভাঙচুর ।

তূণমূল প্রার্থীর দাবি কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালায় এবং তাতে দুজন দলীয় সমর্থক গুলিবিদ্ধ হন।

নৈহাটি বিধানসভার হাজিবাজার এলাকায় তৃনমূল প্রার্থী পার্থ ভৌমিকের নাম লেখা মাস্ক পড়ে,

বুথের মধ্যে এক তৃনমূল এজেন্টকে বসে থাকতে দেখা  যায়।ভোটারদের প্রভাবিত করার অভিযোগ তুলে সোচ্চার হয় বিজেপি।

পরে কেন্দ্রীয় বাহিনীর মধ্যস্থতায় ঘটনাটি নিয়ন্ত্রনে আসে।

গোবরডাঙা কলেজে তৃণমূল-বিজেপি খন্ডযুদ্ধ বাধে।তূণমূলের বিরুদ্ধে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা বলে দাবি বিজেপি প্রার্থী সুব্রত ঠাকুরের।অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল।

বাগদায় বিজেপি ক্যাম্প অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ উঠলো রাজ্যপুলিশের বিরুদ্ধে।

ব্যারাকপুরের শাঁখারিপাড়ায় তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ।পুলিশের লাঠিচার্জ। কেন্দ্রীয় বাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।তৃণমূল ক্যাম্প অফিস থেকে উত্তেজনা ছড়ায় বলে অভিযোগ।

বুধবার শীলভদ্র দত্তের বাড়িতে বোমাবাজির ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে রহড়া পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর যৌথ উদ্যোগে অভিযান চালিয়ে বন্দিপুর এলাকা থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ একজনকে আটক করা হয়।

এছাড়াও ব্যারাকপুরের লালকুঠি  তৃণমূল প্রার্থী রাজ চক্রবর্তীকে গো ব্যাক স্লোগান দেন বিজেপি কর্মীরা।

ঐএলাকারই ১৮নং বুথে রাজ চক্রবর্তীকে বুথে ঢুকতে বাধা দেওয়ায় কেন্দ্রীয়বাহিনীর সঙ্গে তার বচসা বাধে।

ব্যারাকপুরের নতুনপাড়ায় বিজেপি ক্যাম্প অফিসে হামলা নিয়ে উত্তেজনা ছড়ায়।

তাছাড়া সকালে জি.টি রোডে বেশকিছু দোকান খোলা থাকা নিয়ে ব্যবসায়ী ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর মধ্যে অশান্তি ছড়ায়।

 

এদিন, হালিশহরের ১২ নম্বর ওয়ার্ডে বিজেপির বুথ সভাপতি নিতাই রায়ের বাড়িতে চড়াও হয় তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা।

অভিযোগ, বিজেপি নেতার বৃদ্ধা মাকেও মারধর করা হয়।

আক্রান্ত হয়েছেন বিজেপি নেতার দাদাও।

তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের মারে গুরুতর আহত হয়েছেন বিজেপি নেতার মা।

বীজপুরের বিজেপি প্রার্থীর অভিযোগ,

তৃণমূল কংগ্রেস ভয় দেখিয়ে ভোটারদের ভোটদান থেকে বিরত করার চেষ্টা করছে।

মানুষ এর জবাব দেবে।

অন্যদিকে, ব্যারাকপুরের লিচুবাগানে বিজেপির ক্যাম্প অফিসে হামলা চালানোর অভিযোগ।

তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা বিজেপির ক্যাম্প অফিসে ভাঙচুর চালায় বলে অভিযোগ।

বিজেপি কর্মীদেরও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।

এক বিজেপি কর্মীর পা ভেঙে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

পরিস্থিতি সামাল দিতে শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী লাঠিচার্জ করে।

জমায়েত হঠিয়ে দেওয়ার জন্য মোতায়েন করা হয় পুলিশ বাহিনীও।

Previous articleনির্বাচনী ব্রেকিংঃ দুপুর ৩টে পর্যন্ত ভোটদানের হার ৭০.৪২%
Next articleভোট বয়কট হেমতাবাদে