Home HEADLINE STORY দূর্গাষ্টমী , বেলুড় মঠে কুমারী পুজা

দূর্গাষ্টমী , বেলুড় মঠে কুমারী পুজা

68
0

বুধবার ভোর পাঁচটা ৪০ মিনিট থেকেই বেলুড় মঠে শুরু হয় অষ্টমী পুজো। নিয়ম মেনে সকাল ৯ টায় কুমারী পুজো দিয়েই সারাদিন চলছে অষ্টমী পুজোর আচার।

অষ্টমী পুজোর বিশেষ আচার হিসেবে কুমারী পুজোকে মান্যতা দেওয়ার রীতি দীর্ঘকালের।

 

বয়স অনুযায়ী ১৬ টি নামে পুজিতা হন কুমারীরা।সন্ধ্যা, সরস্বতী, ত্রিধামূর্তি, কালিকা, সুভগা, উমা, মালিনী, কুব্জিকা, অপরাজিতা, কালসন্দর্ভা, রুদ্রানি,ভৈরবী, মহালক্ষ্মী, পীঠনায়িকা, ক্ষেত্রঞ্জা ও অম্বিকা।

 

মূলত সমাজে নারীর স্থান ও পূর্ণ  মর্যাদা দেওয়াই এই পুজোর অন্যতম কারন

বলে অনেকেই মনে করেন।

১৬ টি উপকরন দিয়ে কুমারীর পা ধুইয়ে এই পুজো শুরু হয়।

প্রথমে বেল্পাতা , আতপচাল , চন্দন , ফুল , দূব্বা ঘাস দিয়ে পুজোর আচার শুরু হলেও কুমারীকে মালা পড়িয়ে , হাতে পদ্ম আর বরাভয় ভঙ্গীমায় পুজো করা হয়ে থাকে।

পুজোর আচারে অগ্নি জল বাতাস  বস্ত্র  পুষ্প দিয়ে পুজো সমাপ্ত হলে,

কুমারী দেবীকে শ্রদ্ধা ও প্রনাম জানান ভক্তরা।

কুমারী পুজো সকালের মধ্যে সম্পন্ন হলে , রাতে নবমী ও অষ্টমী সন্ধিক্ষন কে

আহ্বান করার রীতি । সবাই একে সন্ধি পুজো বলেই জানেন।

১০৮ টি দীপ জ্বালিয়ে এই সন্ধিক্ষন কে আহ্বান করা হয়।

 

অষ্টমী তিথি ও নবমী তিথির সন্ধিক্ষন অর্থাৎ ঠিক ৪৮ মিনিট দূর্গা পূজার

মহা সন্ধিক্ষন। পুরান তত্ত্বে এই সন্ধিক্ষনেই দেবী অসুরের বিনাশ ঘটিয়েছিলেন।

 

দেবী দূর্গা ও মহাকালীর রূপ পরিবর্তন ও সময় সন্ধিক্ষন এসবের পাশাপাশি

মনে করা হয় সন্ধি আমাদের ষড় রিপু বিসর্জন দিয়ে জীবন

অতিবাহিত করার সন্ধি।

 

Previous articleকয়লা মামলায় বড় রায়
Next articleভোররাতে মুম্বইএর বহুতলে আগুন পুড়ল বাইক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here