Home BUSINESS স্বপ্নের সুখি গৃহকোন উপহার দেন সঞ্জীব

স্বপ্নের সুখি গৃহকোন উপহার দেন সঞ্জীব

4
0

দশটা বছর ধরেই সুখি গৃহকোন বানানোর কাজ টা শুরু করেছিলেন সঞ্জীব। সাজিয়ে গুছিয়ে আপনার সখের বাড়ি যেন হয়ে ওঠে

রূপকথার রাজ প্রাসাদ। এমনটাই তো আপনার  ইচ্ছে ছিলো তাই নয় কি !

 

ঠিক যেমনটা হয়েছে পার্থ ঘোষের । উত্তালিকার বহুতলে তাঁর সাধের ফ্ল্যাট দেখে সেদিন মনটা খারাপ হয়ে গিয়েছিল । কষ্টার্জিত 

অর্থে সাধের এমন ঠিকানা ছোট হয়ে গিয়েছে । কিন্তু সেই এক টুকরো  দুনিয়া টা বদলে গেল সঞ্জীবের হাত ধরে।

 

কেরিয়ারের প্রথমেই  ভেবেছিলেন তিনি নিজে কিছু করবেন। গড়ে উঠবে নিজের প্রতিষ্ঠান । সেখানে কর্ম সংস্থান হবে। সেই লক্ষ্য  নিয়েই

সঞ্জীব কেরিয়ার শুরু করেছিলেন।

 

আগে আই টি  মানে ইনফরমেশন টেকনোলজি নিয়ে কাজ শুরু করলেও স্বপ্ন দেখা চোখ দুটো কখন যেন

আমার আপনার সুখি গৃহকোনের সাধ পূরনের আশায় নিজেকে মেলে দিয়েছিল।

 

দশ টা বছর ধরে ইন্টেরিয়র ডেকরেশনের কাজ শুরু করে আগে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছেন। তারপর পুরোপুরি নেমে পড়েছেন ব্যবসায়ীক

লক্ষ্যে  গড়ে উঠেছে  BASAK INTEROR .  আজ বসাক ইন্টেরিয়র এর প্রশংসায় পঞ্চমুখ  সঞ্জীবের সঙ্গে যারা ইতিমধ্যে কাজ করেছেন ,

মানে তাঁদের  অন্দর সজ্জা করিয়েছেন তাঁরা সবাই।

 

  যেমন রঙের ব্যবহার , তেমন আসবাবের ব্যবহার। দেখলে যেন মনে হয় রূপকথার প্রাসাদে দিন কাটাই। বসাক ইন্টেরিয়র  এর সফলতার

পিছনে সঞ্জীবের যে লড়াই , তা বলছিলেন মিরর নিউজ কে। বলছিলেন বিশ্বাস অর্জন করাটাই ছিল বড় চ্যালেঞ্জ ।

 

একজন মানুষ তাঁর কষ্টের টাকায়   শুধু মাত্র স্বপ্নের মতো ঘর বানাতে চায়। ফলে সেই কাজে চ্যালেঞ্জটা ভাবুন একবার। এক টাকা , দু টাকা নয়

লাখ লাখ টাকার চ্যালেঞ্জ।  এখানেই শেষ নয়। এর সঙ্গে রয়েছে  একাধিক টিম কে নিয়ে কাজ করা আর তাঁদের মধ্যে সমন্বয় রক্ষা

করে কাজ টা দাঁড় করানো।

 

আপনার মনের ভেতর টাকে না বুঝলে , আপনার স্বপ্ন দেখাটা , সাধটা না পড়তে পারলে , বুঝতে পারলে  আপনার চাহিদা মতো আপনার

ঘরকে  সাজাবো কি করে ?  সেই কাজ টাই বারবার করার চেষ্টা করেছি।  পরিবার নয় , নিজের ব্যবসার টাকা নিজেই জোগাড় করেছি।

বিশ্বাসের সঙ্গে কাজ করে ব্যবসা পেয়েছি।

 

এরপর ৬ বছর আগে গড়ে তুলেছি BASAK INTERIORS.   কনফিডেন্ট এ  ভরপুর বছর ৪২ পেরোনো মানুষটিকে

প্রশ্ন না করে পারলাম না , নতুন দের জন্য কি বলবেন? এই প্যান্ডেমিকেও তো বেশ ক্ষতি  হয়েছে ব্যবসার তারপরেও ?

 

সঞ্জীবের স্মার্ট জবাব গত লক দাউন , এবার সব মিলিয়ে ক্ষতি তো হয়েইছে। কিন্তু আমরা থেমে থাকি নি। থেমে যায় নি আমাদের টিম।

সবাইকে নিয়ে বন্ধুর মতো চলেছি । আবারো সব ঠিক করে নেবো ।

 

আর যারা নতুন যে কোনো ব্যবসায়েই আসতে চান , তাঁরা লেগে থাকুন , সময়দিন, স্বপ্ন দেখুন। স্বার্থক হবেই একদিন।

 

Previous articleরাজধানীতে ফিরলো কৃষক আন্দোলন
Next articleতস্মৈ শ্রীগুরবে নমঃ