Home FEATURE Transgender দের পাশে কিড সেন্টার

Transgender দের পাশে কিড সেন্টার

59
0

ট্রান্সজেন্ডার। এই  শব্দের সঙ্গে পরিচিতি নেই , এমন মানুষ হাতে গোনা। এবার এদের পাশেই এসে দাড়িয়েছে দক্ষিন কলকাতার

এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। কিডস সেন্টার। ফার্ণ রোড। এই মহামারীতে এবার কলকাতার লেক গার্ডেন্স এবং সংলগ্ন অঞ্চলের

ট্রান্সজেন্ডারদের  স্বাস্থ শিবির এর দায়িত্ব নিল  এই  এন.জি.ও। 

 

 ভবিষ্যতে ,এই সম্প্রদায়ের মানুষদের নিয়ে  কমিউনিটি স্কুল তৈরী তে সাহায্য করার পরিকল্পনার কথাও জানাচ্ছে  কিডস সেন্টার ।

 

  সরকারি তরফে  ২৪এ জুলাই সকাল ১২টা থেকে দক্ষিণ কলকাতার ট্রান্সজেন্ডার দের  এর এইচ.আই.ভি পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছিল 

 রাজ্য সরকারের তরফে। সেখানে দেখা হল কিডস সেন্টারের সদস্য দের সঙ্গে। তাঁরা ট্রান্সজেন্ডারদের হাতে তখন তুলে দিচ্ছিলেন 

 ফুড প্যাকেট এবং মাস্ক ও স্যানিটাইজারের মতো জিনিস পত্তর। 

 

মিরর নিউজের সঙ্গে কথা বলতে এগিয়ে এলেন কিডস সেন্টারের আধিকারিক রীনা দত্ত পোদ্দার। তিনিই বলছিলেন তাঁদের সদস্যদের অনেকেই

অবসরপ্রাপ্ত । কিন্তু হলে হবে কি তাঁরা সব সময় যেন তরুন কিম্বা  যুবকদের  মত ছুটছেন । সামনে একাধিক প্ল্যান। সফল করতেই হবে ।

 

  দক্ষিণ কলকাতায় এবং সুন্দরবন অঞ্চলে থাকা দুস্থ  শিশু দের জন্যে ২টি অবৈতনিক ইস্কুল চালান কিডস সেন্টারের সদস্য রা । এছাড়াও 

 যৌন কর্মী দের জন্যেও কাজ করার নজির আছে কিডস সেন্টার এর । কালীঘাট অঞ্চলের প্রায় ২৫০ যৌন কর্মী দের জন্য কাজ করেছে এই এন.জি.ও।

এছাড়া  যশ , আম্ফানের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগেও এরা ছুটে গিয়েছেন মানুষের পাশে দাড়াতে।

 

    আজ আর কিডস সেন্টার একা নয় তাঁদের কাজের ধারায় এগিয়ে এসেছে অনেক গুলি স্বেচ্ছা সেবী সংগঠন । আইওন ফাউন্ডেশন,

ইন্ডিয়ান অয়েল ,রোটারি এবং আই.টি.সি.লেডিস সোসাইটি সহ আরো অনেক বড়ো সংস্থার সাথে সহযোগিতায় কাজ করেছে কিডস সেন্টার।

মার্কিনি এন . জি.ও কল্লোল ওমেন্স ফোরাম (মেধা)র সাথেও সরাসরি ভাবে জড়িত কিডস সেন্টার।

এমন সংস্থা এভাবেই মানুষের পাশে থাকুক আজীবন । আপনাদের কুর্নিশ জানায় মিরর নিউজ ।

——————————————————–

কঠিন সময় এর মধ্যে দিয়ে চলতে হচ্ছে আমাদের। তাই সোজা কথা সোজা ভাবে বলাটাই শ্রেয়। আমাদের মতো ছোট এই সংস্থা চালিয়ে নিয়ে যাওয়াটা প্রতিদিনের একটা চ্যালেঞ্জ। সে চ্যালেঞ্জকে সামনে রেখেই , আমরা খবর পরিবেশন করে চলেছি। চলছে শনিবাসর এর মতো  সাহিত্য বিভাগ সম্পাদনার কাজ। স্বপ্ন একটাই। পাশে চাই  আপনাকে , আপনাদের। আপনাদের সাহায্য এই মুহুর্তে আমাদের খুব খুব প্রয়োজন। যদি মনে করেন আমাদের সামনে বন্ধুত্বের হাত টা বাড়িয়ে দেওয়া উচিত , তাহলে একটু ভাবুন আমাদের কথা। আমাদের লড়াই টা চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার রসদ আর শক্তি দিন।

দেশের সহ নাগরিকদের জন্য 

আমাদের সদস্য হোনঃ  আপনাদের কাছে আমাদের একান্ত অনুরোধ । আমাদের সাবস্ক্রাইবার অর্থাৎ সদস্যতা গ্রহন করুন । আপনাদের পাশে থাকাটা খুব জরুরি  আমাদের কাছে। যারা ভারত থেকে অর্থাৎ দেশের সহ নাগরিক তাঁরা প্রতি মাসে মাত্র ১০০/- টাকা য় আমাদের সদস্যতা গ্রহন করুন। তিন মাস – ৩০০/- টাকা  । ছয়মাস-৬০০।- টাকা  । ১ বছরের সদস্যতা – ১২০০/- 

যারা সারা বছরের জন্য সদস্যতা গ্রহন করবেন তাঁদের প্রত্যেক কে আমাদের তরফ থেকে একটি সম্মান পত্র ও সদস্যতা বৈধ পরিচয় পত্র আমরা মেইল আইডি তে পাঠিয়ে দেবো।  সেই সঙ্গে ফেইসবুকে আমাদের যে অনুষ্ঠান গুলি টিকিট কিনে দেখার ব্যবস্থা করা হয়েছে , তা আপনাদের জন্য  সম্পূর্ন 

বিনামূল্যে। আমরা অতিথি টিকিট ইমেল মারফত পাঠিয়ে দেবো । 

আর বাকি সদস্যদের জন্য শুধু মাত্র সম্মান পত্র টিই আমরা পাঠাবো। 

প্রবাসীদের জন্যঃ 

আপনারা যারা পরবাসে, কিন্তু নিজ ভূমের কথা কখনো ভোলেন নি । আপনাদের পাশে আমরাও থাকতে চেয়েছি সবসময় আর আপনারাও আমাদের 

সঙ্গে রয়েছেন সবসময়। আমরা জানি। আরো একবার আপনাদের কাছে আমাদের অনুরোধ এই  মুহুর্তে আপনাদের পাশে থাকাটা আমাদের কাছে খুবই 

প্রয়োজনীয়। আপনারাও আমাদের সদস্যতা নিন। ৩ মাসের সদস্যতাঃ ৯০০/- । ৬ মাসের সদস্যতাঃ১৮০০/-। ১২ মাসের সদস্যতাঃ৩৬০০/- 

সদস্যতা গ্রহন করলে আমাদের তরফ থেকে আমরা আপনাকে সম্মান পত্র ও আমাদের বৈধ সদস্যতা পরিচিতি পত্র ইমেইল মারফত পাঠিয়ে দেবো। 

সেই সঙ্গে আপনার জন্য আমাদের ফেইসবুক পেইজ  এর যতগুলি Paid Program অনুষ্ঠিত হয় তার অতিথি পত্রও পাঠিয়ে দেব। 

কিভাবে আমাদের সদস্যতা গ্রহন করবেন?

এই লেখার শেষেই দেখুন একটি ফর্ম আছে সেটি ভরে সাবমিট করে দিন। তার আগে PAY NOW

বোতামটিতে ক্লিক করে আপনার যে কোনো মাধ্যমে সদস্যতার মূল্য প্রদান করতে পারেন। আর তা হয়ে গেলে ট্রান্সকাশন আই ডি টি নোট করে নিয়ে

ওপরের ফর্ম ভরার সময় বসিয়ে দিন। 

অনলাইনে পেমেন্ট করার ক্ষেত্রে আপনি নিশ্চিত থাকুন আপনার সুরক্ষা বিষয়ে আমরা সজাগ। দেশের সবথেকে সুরক্ষিত পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার

করছি আমরা।                  

[vfb id=3]

 

 

Previous articleফের ভূমিকম্প দেশজুড়ে
Next articleদেখার গল্প (ষষ্ঠ পর্ব)