Home AGRICULTURE শাপে বর: গ্রীনল্যান্ডে এঁটেল মাটি

শাপে বর: গ্রীনল্যান্ডে এঁটেল মাটি

100
0

দুনিয়ার সবচেয়ে বড় এক টা দ্বীপ। উত্তর আমেরিকার এই দেশ আর্ক্টিক ও আটলান্টিক মহাসাগরের ঠিক মাঝখানে। সেই  দ্বীপটিকে গ্রীনল্যান্ড নামেই দুনিয়ার  মানুষ চেনেন।

গ্রীনল্যান্ড জূড়ে এখন একরাশ প্রকৃতির চমক। এমনি তে গ্লোবাল ওয়ার্মিং , দুনিয়া জুড়ে ভয় পাওয়ার মতো উষ্ণায়নের গল্পে পিলে চমকানোর যোগাড়। তবে এরই মধ্যে প্রকৃতি খানিক খুশির বার্তাও বয়ে এনেছে তাঁর সন্তানদের জন্য।

ইতিমধ্যে গ্লোবাল ওয়ার্মিং বা বিশ্ব জুড়ে উষ্ণায়নের কারনে দুই মেরুর  হিমবাহ  গলে জলভাগ বেড়ে যাওয়ার খবরে চিন্তিত তামাম দুনিয়া। ঘটছেও তাই। হিমবাহ গলে ইতিমধ্যে বেড়েছে জল স্তর।

তবে বিপদের মধ্যেও দারুন খবর। প্রকৃতির এই হিমবাহ গলার সংগে সংগেই প্রাকৃতিক ভাবে মিলেছে rock flour .  বা এঁটেল মাটির সন্ধান।বিজ্ঞানীরা সেই মাটি পরীক্ষা করেই জানাচ্ছেন , বিভিন্ন খনিজ পদার্থ মিশ্রিত এই মাটি গুনমানে সেরা।

গুনমানে  সেরা এই এঁটেল মাটি ইতিমধ্যে চাষের কাজেও লাগানো হয়েছে গোটা গ্রীনল্যান্ড জুড়ে। এতে ফলনও বেশ হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। প্রাকৃতিক ঝঞ্ঝায় তৈরি এমন মাটি যে গ্রীনল্যান্ডের মতো দেশের কাছে , কৃষিকে আরো সমৃদ্ধ করবে এটাই স্বাভাবিক। মাটি , বস্তায় ভরে নিয়ে এসে তাই  লাগানো হচ্ছে চাষের কাজে।

২০২০ সালের নিরীখে, গ্রীনল্যান্ডের মতো দেশে যে ৫৭ হাজারের মতো বসবাসকারী  যে মানুষ গ্লোবাল  ওয়ার্মিং এর কারনে হিমবাহ গলে জলস্তর বেড়ে যাওয়ার ছবি ও খবরে ভীত সন্ত্রস্ত ছিলেন , তাদের সামনে এখন প্রকৃতি মায়ের অফুরান ভালোবাসা।

 

Previous articleকৃষকদের অভিনন্দন মমতার
Next articleজমিদারি নেই, ইতিহাস ছুঁয়ে বারুইপুরের রাস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here