Home HEADLINE STORY #IntangibleHeritage তালিকায় দূর্গা পূজো

#IntangibleHeritage তালিকায় দূর্গা পূজো

199
0

বাংলার জন্য গর্বের মুহূর্ত। বললেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বাঙ্গালীদের কাছে দুর্গাপূজা উৎসব এর থেকেও বড়। দুর্গাপুজো প্রত্যেক বাঙালির আবেগ।

এবার এই দুর্গা পুজো ইনটেনজিবল কালচারাল হেরিটেজ অফ হিউম্যানিটি তালিকায়।

বুধবার ইউনেস্কো ঘোষণা করেছে ,যে কলকাতার দুর্গাপূজা ‘মানবতার অধরা সাংস্কৃতিক

ঐতিহ্য’-এর তালিকায় তাঁর নাম লিখে নিয়েছে ।

১৩ ডিসেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় ইউনেস্কোর বার্ষিক সম্মেলন।

এদিন ইউনেস্কো ঘোষণা করে জানিয়েছে  ,দুর্গা পূজা হল ধর্ম এবং শিল্পের সর্বজনীন

মেলবন্ধন এর অন্যতম উদাহরণ।

সমস্ত বাধা দূর করে সবাই এক হয় এই উৎসবে।

এবং সহযোগী শিল্পী ও ডিজাইনারদের জন্য একটি সমৃদ্ধ ক্ষেত্র হিসাবে দেখা হয়

এই “উৎসব” । UNESCO আরো জানিয়েছে,

দুর্গা পূজা দেশের বিভিন্ন স্থানে উদযাপিত হয়,তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্যভাবে তা হয়

কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে ।

এমন এক উৎসব  দেবী দুর্গার দশদিনের উপাসনাকে চিহ্নিত করে । শুধু তাই নয়,

যার মধ্যে গঙ্গা থেকে তুলে  আনা কাদামাটি থেকে তৈরি দেবীর কারিগরী ভাস্কর্য শিল্প-

উথকর্ষতার এক দুর্দান্ত নিদর্শন।

ইউনেস্কোর এমন  ঘোষণার পর, মুখ্যমন্ত্রীর ট্যুইটার , “বাংলার জন্য গর্বের মুহূর্ত!

সারা বিশ্বের প্রতিটি বাঙালির কাছে,দুর্গাপূজা একটি উৎসবের চেয়ে অনেক বেশি,

এটি একটি আবেগ যা সবাইকে এক করে।”

“এবং এখন দুর্গাপূজা মানবতার অস্পষ্ট সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের প্রতিনিধি তালিকায় যুক্ত

হয়েছে।আমরা সবাই আনন্দে উদ্ভাসিত।”

প্রধানমন্ত্রীও বার্তা দিয়ে জানিয়েছেন ,

“প্রত্যেক ভারতীয়র জন্য অত্যন্ত গর্বের এবং আনন্দের বিষয়” বলে অভিহিত করেছেন।

“দুর্গা পূজা আমাদের ঐতিহ্য এবং নীতির শ্রেষ্ঠত্ব তুলে ধরে। এবং, কলকাতার দুর্গাপূজা এমন

একটি অভিজ্ঞতা যা প্রত্যেকেরই থাকতে হবে,” বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইট বার্তায় বলেছেন,

দুর্গাপূজা ভারতের চমৎকার সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং ঐক্যের চেতনাকে প্রতিফলিত করে।

এটা জেনে দারুণ লাগছে যে এই উৎসবটি ইউনেস্কোর

#IntangibleHeritage তালিকায় খোদাই করা হয়েছে। তাতে প্রত্যেক ভারতীয় অত্যন্ত

গর্বিত,” । এছাড়াও,ইউনেস্কোর ‘ইনটেনজিবল কালচারাল হেরিটেজ অব হিউম্যানিটি’

তালিকায় রয়েছে, ভেনেজুয়েলায় সেন্ট জন উদযাপন, পানামায় পালিত

কর্পাস ক্রিস্টি উৎসব এবং বলিভিয়ান গ্র্যান্ড ফেস্টিভ্যাল অফ টারিজও।

Previous articleহাওড়ায় স্বাস্থ্য -পরীক্ষা
Next articleমহানন্দায় উদ্ধার পাথরের মূর্তি